ভাইভা বোর্ডে সাধারণত যেসব প্রশ্ন করা হয়

Home/Career Tips/ভাইভা বোর্ডে সাধারণত যেসব প্রশ্ন করা হয়

ভাইভা বোর্ডে সাধারণত যেসব প্রশ্ন করা হয়

চাকরি খুঁজছেন? সরকারি কিংবা বেসরকারি যেকোন প্রতিষ্ঠানে চাকরি পেতে হলে ইন্টারভিউ বোর্ডের মুখোমুখি আপনাকে হতেই হবে। ভাইভা বোর্ডে কেমন প্রশ্ন করা হয়? প্রশ্নের উত্তরগুলো কেমন হবে- এ নিয়ে প্রায় বেশিরভাগ চাকরিপ্রার্থীই সংশয়ে থাকেন।

চাকরির বাজারে প্রতিযোগিতায় টিকতে আপনি যদি ঢাল তলোয়ার নিয়ে প্রস্তুতির শেষ পর্যায়ে থাকেন তবে তার সাথে কিছু তীর ধনুকই বা কেনো ঝোলায় রাখবেননা? নিচের প্রশ্নগুলোকে পারিপার্শ্বিক প্রস্তুতির সাথে একই সরল রেখায় রেখে নিজের জীবনের সাথে মিলিয়ে সর্বোত্তম উত্তরটা জেনে রাখুন। বলা তো যায় না কখন কোন ধনুকে শিকার সফল হয়ে যায়। দিন শেষে আমরা সবাই বিজয়ীর হাসি হাসতে চাই। আর সেই হাসিটা যদি হয় চাকরি নামের সোনার হরিণ পাওয়ার হাসি, তাহলে তো কথাই নেই।

আপনারা যারা এরইমধ্যে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ইন্টারভিউ দিয়েছেন, তারা এই প্রশ্নগুলির মুখোমুখি হয়েই এসেছেন। আর যারা এখনো ইন্টারভিউ দেননি,চাকরি পেতে চাইলে আজ কিংবা কাল ভাইভা বোর্ডের মুখোমুখি হতেই হবে। আশা করুনছি এই সবগুলো প্রশ্নই আপনাদের কাজে লাগবে। ভাইভা বোর্ডে সাধারণত যেসব প্রশ্ন করা হয় তার মধ্য থেকে চল্লিশটি প্রশ্ন এখানে দেওয়া হলো। চলুন জেনে নেওয়া যাক ভাইভা বোর্ডে আপনি কী ধরনের প্রশ্নের মুখোমুখি হতে পারেন।

১। নিজের সম্পর্কে কিছু বলুন?
২। আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পর্কে বলুন?
৩। আপনার নিজের  স্ট্রেন্থ/ উইকনেসগুলো কি কি বলে মনে করেন?
৪। আপনাকে আমাদের কেন নিয়োগ দেওয়া উচিত বলে মনে করেন?
৫। আমাদের কোম্পানিতেই কেন কাজ করতে চান?
৬। হার্ড ওয়ার্ক এবং স্মার্ট ওয়ার্ক বলতে কি বুঝেন?
৭। চাপের মধ্যে কাজ করা (Work under Pressure) বলতে কি বুঝেন?
৮। ভ্রমন করাকে কিভাবে দেখছেন? প্রয়োজনে ভ্রমন বা ট্রান্সফার হওয়াকে কিভাবে গ্রহন করবেন?
৯। আপনার জীবনের লক্ষ্য কি?
১০। কি আপনাকে রাগিয়ে তোলে?
১১। কি আপনাকে প্রেরণা (Motivation) যোগায়?
১২। আপনার জীবনের করা কিছু ক্রিয়েটিভ কাজের উদাহরণ দিন?
১৩। আপনি কি একা কাজ করতে পছন্দ করেন নাকি দলকে সাথে নিয়ে কাজ করা কে বেশি গুরুত্ব দেন?
১৪। আপনার করা কিছু দলগত কাজের উদাহরণ দিন?
১৫। লিডার হিসেবে নিজেকে আপনি ১ থেকে ১০ এর মাঝে কত দিবেন?
১৬। রিস্ক নিতে কি পছন্দ করেন?
১৭। আপনার পছন্দের কিছু চাকরি, অফিস লোকেশান এবং কোম্পানির উদাহরণ দিন?
১৮। আমাদের কোম্পানি সম্পর্কে কিছু বলুন?
১৯। আজ থেকে দশ বছর পর নিজেকে কোথায় দেখতে চান নিজেকে?
২০। আপনার আগের কোম্পানি থেকে কেনো  চাকরি ছেড়ে দিতে (Resign) দিতে চাচ্ছেন?
২১। কাজ থেকে কেন অনেক দিন বাহিরে ছিলেন?
২২। অনেক গুলি কোম্পানি কেনো পরপর পরিবর্তন করেছেন?
২৩। আপনার করা সবচেয়ে বিরক্তিকরুন কাজ কি ছিলো?
২৪। সবচেয়ে কঠিন যে চ্যালেঞ্জ নিয়ে কাজ করেছিলেন তা কি ছিলো?
২৫। আপনাকে যদি আমরা নিয়োগ দেই কি কি পরিবর্তন আপনি আনতে পারবেন বলে মনে করুনছেন?
২৬। আপনার কি মনে হয় যে আপনি আপনার আগের কাজে আপনার সর্বোচ্চটা দিয়েছিলেন?
২৭। আপনার চেয়ে বয়সে ছোট কাউকে রিপোর্ট করাকে কিভাবে দেখবেন আপনি?
২৮। আপনি কি আপনাকে সফল মনে করেন?
২৯। আপনার জ্ঞান বৃদ্ধির জন্য বিগত বছরে কি কি করেছেন?
৩০। আর কোথায় কোথায় চাকরির জন্য আবেদন করেছেন?
৩১। আমাদের কোম্পানির কারো সাথে কি পরিচয় আছে?
৩২। আপনাকে যদি নিয়োগ দেওয়া হয় কত দিন আমাদের সাথে কাজ করার ইচ্ছে আছে?
৩৩। আপনি কি কাউকে কখনো চাকরি থেকে বরখাস্ত করেছেন? কেন করেছিলেন, কি পন্থা অবলম্বন করে করেছিলেন? তখন আপনার প্রতিক্রিয়া কি ছিলো?
৩৪। ব্যখ্যা করুন আপনি কিভাবে আমাদের জন্য মূল্যবান সম্পদ হবেন?
৩৫। আপনার দেওয়া কোন সাজেশন ম্যানেজমেন্ট গ্রহন করেছে এমন একটি উদাহরণ দিন?
৩৬। আপনার কলিগদের আপনার সম্পর্কে কি মন্তব্য?
৩৭। নতুন টেকনোলজিকে কিভাবে গ্রহন করুনছেন আপনি? কি কি সফটওয়্যার এর সাথে আপনি পরিচিত?
৩৮। আপনার শখ কি বা কি করতে ভালো লাগে?
৩৯। আপনার নিজের সময় জ্ঞান সম্পর্কে বলুন?
৪০। আপনি কেমন বেতন আশা করুনছেন বা আপনার সেলারি এক্সপেকটেশন কি?

ইন্টারভিউয়ের শেষে সাধারণত জানতে চাওয়া হয়, ‘আপনার কি কিছু জানার আছে?’

সূত্রঃ লিংকড-ইন

By | 2018-04-26T15:50:54+00:00 March 18th, 2018|Career Tips|0 Comments

Leave A Comment